প্রচ্ছদ

যা পরলে প্লেন দুর্ঘটনার পরও বেঁচে যেতে পারেন!

১৩ আগস্ট ২০১৮, ১৬:৪৮

শুভ প্রতিদিন

শুভ প্রতিদিন ডেস্ক : শুভ প্রতিদিন ডেস্ক : আপনার প্লেন ভ্রমণ যেমন আনন্দদায়ক হতে পারে, তেমনি খুব খারাপ অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হওয়ারও সম্ভাবনা রয়েছে। কিছু সাবধানতা অবলম্বন করলে হয়তো আপনি প্লেন দুর্ঘটনার পরও বেঁচে যেতে পারেন।

নিরাপত্তা বিশ্লেষক ও এভিয়েশন আইনজীবী ম্যারি চিয়াভোর মতে, আধুনিক প্লেনগুলো এমনভাবে নকশা করা যাতে মাত্র ৯০ সেকেণ্ডের মধ্যে যাত্রীদের উদ্ধার করা যাবে।

তিনি যাত্রীদের জন্য বেশকিছু পরামর্শও দিয়েছেন। বলছেন, কাপড়ের কারণে যাত্রীদের আরও নিরাপদে উদ্ধার করা সম্ভব হবে।প্লেনে যাত্রীরা বসে আছেন।

প্লেনে যাত্রীরা বসে আছেন।
ম্যারি চিয়াভোর দেওয়া বিশেষ এ কৌশলগুলো বাংলানিউজের পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো-

১. আরামদায়ক জুতা পরা: অনেকে প্লেনে ওঠার পর জুতা খুলে ফেলেন। কিন্তু ম্যারি চিয়াভো যাত্রীদের প্লেনেও জুতা পরে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন। তিনি অবশ্য বলেছেন প্লেনে ভ্রমণের সময় আরামদায়ক জুতা পরা ভালো। তার মতে, পায়ে জুতা না থাকলে খুব সহজে প্লেন থেকে বের হয়ে দৌড় দেওয়া কঠিন হয়।

তিনি বলেন, প্লেন উড্ডয়ন ও অবতরণের সময়ই অধিকাংশ সময় দুর্ঘটনা ঘটে। এসময় জুতা পরে থাকা ভালো। এতে করে বিপজ্জনক কিছু ঘটলে আপনি ভালোভাবে দৌড় দিতে পারবেন।

২. হাত ও পা ঢাকে এমন কাপড় পরা: চিয়াভো বলেন, হাত ও পা ঢেকে দেয় এমন কাপড় আগুনের হাত থেকে আপনাকে সুরক্ষা দেবে। এ ধরনের কাপড় শুধু আগুন নয়, বিভিন্ন ধরনের আচড় ও আঘাত থেকেও রক্ষা করবে।

তিনি বলেন, যখন আপনার হাত ও পা কাপড় দিয়ে ঢাকা থাকবে তখন আপনি সুরক্ষিত থাকবেন।

তিনি প্লেন ভ্রমণে অবশ্যই হাত ও পা ঢেকে দেয় এমন কাপড় পরিধানের পরামর্শ দিয়েছেন।

৩. নেশাগ্রস্ত না থাকা ভালো: প্লেন ভ্রমণে আপনি কোনো নেশাজাতীয় তরলদ্রব্য পান করতেই পারেন। তবে ম্যারি চিয়াভো পরামর্শ দিচ্ছেন প্লেন ভ্রমণে নেশাগ্রস্ত না থাকতে।

তার মতে, আপনি আসলে জানেন না, কখন দুর্ঘটনা ঘটবে। অপ্রকৃতিস্থ বা নেশাগ্রস্ত থাকলে উদ্ধার কার্যক্রম ব্যহত হয়। সে নিজেও বিপদে পড়ে এবং অন্যদেরও বিপদে ফেলে। তারা উদ্ধার কাজের সবথেকে বড় বাধা হয়ে যায়।

৪. প্রস্থানের পথ জেনে নিন: চিয়াভো বলছেন, তিনি প্লেনে ওঠার পর সবার আগে প্লেনের প্রস্থানের পথ দেখে নেন। এছাড়া তার আসন থেকে প্রস্থান পথ কতদূর তাও ভালোভাবে খেয়াল করেন। এরপর তিনি সতর্ক বাতির দিকে লক্ষ্য রাখেন।

পরিবহন বিশেষজ্ঞ ম্যারি চিয়াভো বলছেন, কিছু সাধারণ বিষয় অনুসরণ করলে একজন যাত্রী জরুরি সময়ে অল্প সময়েই নিরাপদ থাকতে পারেন। মনে রাখতে হবে, এক সেকেন্ডের কারণে আপনার জীবন বেঁচে যেতে পারে।