প্রচ্ছদ

মেয়র আরিফ বাজেট বক্তৃতায় যাদের নাম নিলেন

২৫ আগস্ট ২০১৯, ১৭:৫১

শুভ প্রতিদিন

নিজস্ব প্রতিবেদক :
২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেট সিলেট সিটি করপোরেশনের (সিসিক) ঘোষণা করেছেন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। আজ রোববার দুপুরে নগরীর দরগাহ গেইটস্থ একটি হোটেলের হলরুমে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বাজেট ঘোষণা করেন তিনি।

এ বছর সিসিকের ৭৮৯ কোটি ৩৮ লাখ ৪৭ হাজার টাকার বাজেট ঘোষণার সময় দীর্ঘ বাজেট বক্তব্য রাখেন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

নিজের বক্তব্যে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্মরণ করেন আরিফ। তিনি বলেন, ‘আগস্ট মাস বাংলাদেশে শোকের মাস হিসেবে পালিত হয়। কারণটাও সকলেরই জানা আছে। বহু ত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত আমাদের স্বাধীনতার মহান স্থপতি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এই মাসেই নির্মমভাবে নিহত হয়েছিলেন। তাঁর এবং ওইদিনে তাঁর স্বজন ও পরিজনদের মধ্যে যারা নিহত হয়েছিলেন তাঁদের রুহের মাগফেরাত কামনা করছি এবং তাঁদের স্মৃতির প্রতি সিলেট সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে গভীর শ্রদ্ধা ও সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।’

মেয়র আরিফ গেল প্রায় এক বছরে সিলেটের যেসব বিশিষ্টজন পৃথিবী থেকে বিদায় নিয়েছেন, তাদেরকেও স্মরণ করেন।

মেয়র বলেন, ‘সিলেটের যেসব বিশিষ্টজনেরা আমাদের মাঝ থেকে বিদায় নিয়েছেন তাদের স্বজনদের প্রতি সহানুভূতি ও শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করছি। প্রয়াত সকলের নাম হয়তো উল্লেখ করা যাবে না, তবু আমাদের সুখ-দুঃখের সঙ্গীদের মধ্যে প্রয়াত নাগরিকদের মধ্যে উল্লেখযোগ্যদের স্মরণ করছি।’

মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী সিলেট পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান আ ফ ম কামাল, একুশে পদকপ্রাপ্ত কন্ঠশিল্পী সুবীর নন্দী, সিলেটের সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়াজগতের সুপরিচিত ব্যক্তিত্ব সিলেট কর আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি এডভোকেট সুপ্রিয় চক্রবর্তী রঞ্জু, বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আ ন ম শফিকুল হক, কাজিরবাজার মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা হাবিবুর রহমান, সোবহানীঘাট মাদাসারার মুহতামিম মাওলানা শফিকুল হক আমকুনী, শাহজালাল রহ. মাদরাসার মুহতামিম মুফতি আবুল কালাম যাকারিয়া, জামেয়া তাওয়াক্কুলিয়া রেঙ্গা মাদারাসার শায়খুল হাদীস মাওলানা শিহাব উদ্দিন, বাংলাদেশ বেতার সিলেটের অবসরপ্রাপ্ত সহকারী পরিচালক লেখক ও গবেষক শামসুল করিম চৌধুরী কয়েস, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রুবি ফাতেমা ইসলাম, সাবেক স্পিকার হুমায়ুন রশীদ চৌধুরীর সহধর্মিনী মেহজাবিন চৌধুরী, সিলেট জেলা বিএনপির উপদেষ্টা আব্দুল হান্নান, এম সি কলেজের সাবেক অধ্যাপক নাগরী স্যার খ্যাত এরহাসুজ্জামান, সাবেক এমপি মুক্তিযোদ্ধা শাহ আজিজুর রহমান নাম উল্লেখ করেন।

তিনি সাবেক অধ্যক্ষ মুক্তিযোদ্ধা আলী আকবর খান, নর্থ ইস্ট ইউনিভার্সিটির বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সেক্রেটারি আরিফ ইকবাল চৌধুরী, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও শিক্ষানুরাগী জহির খান লায়েক, যুব রাজনীতিবিদ ও আইনজীবী মঈনুদ্দিন আহমদ জালাল, যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশী কমিউনিটির সংগঠক মুক্তিযোদ্ধা কয়ছর মাহমুদুল হক সৈয়দ, নগর গোয়েন্দা বিভাগের সহকারী কমিশনার জুবের আহমদ পিপিএম, অধ্যাপক শহিদুল হোসেন, স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের প্রাক্তন ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল আহাদ, ভাষা সৈনিক প্রগতিশীল ও গণতান্ত্রিক আন্দোলন সংগ্রামের সংগঠক এডভোকেট মনির উদ্দিন আহমদ, সিলেট-৬ আসনের সাবেক এমপি এ কে এম গৌছ উদ্দিন, করিমউল্লাহ মার্কেটের স্বত্বাধিকারী বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আমান উল্লাহ, আয়কর আইনজীবী এডভোকেট নওরোজ আহমদ, প্রাইম ব্যাংকের আঞ্চলিক প্রধান আবু আশরাফ চৌধুরী মসরু, সংস্কৃতিকর্মী ও ফটো সাংবাদিক কুমার গণেশ পাল, সাবেক পৌর কমিশনার মকসুদ বক্ত, কাউন্সিলর ফরহাদ চৌধুরী শামীমের মা ও বিশিষ্ট সমাজসেবী মরহুম আলাউদ্দিন চৌধুরীর স্ত্রী রেজিয়া বেগম চৌধুরী, সাবেক কাউন্সিলর দিনার খান হাসুর বাবা সুলেমান খান, দৈনিক সিলেটের ডাকের সাবেক সম্পাদনা সহকারী মো. জামিলুর রহমান জাহেদ, শাহপরান জামে মসজিদের খতিব ও শাহপরান মাদরাসার মুহাদ্দিস মাওলানা খলিলুর রহমান, সাউথ ইস্ট ব্যাংকের উদ্যোক্তা ডা. হুমায়ুন কবির এবং সিলেট সিটি রপোরেশনের উপ-সহকারী প্রকৌশলী আলতাফ হোসেনের নামও উল্লেখ করেন।