প্রচ্ছদ

গোলাপগঞ্জে ব্যাংকে চেক ডিজনার করতে এসে
সৈয়দ মিছবাহ’র ছোট ভাই’র হাতে হেনস্থার শিকার ব্যবসায়ী

১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:২৬

শুভ প্রতিদিন

গোলাপগঞ্জ প্রতিনিধি :
সিলেটের গোলাপগঞ্জে ইসলামি ব্যাংকে চেক ডিজনার করতে এসে হেনস্থার শিকার হয়েছেন হেতিমগঞ্জের সাকির খান নামের এক ব্যবসায়ী। বৃহস্পতিবার দুপুরে ইসলামি ব্যাংক গোলাপগঞ্জ শাখায় এ ঘটনাটি ঘটে।

ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী সাকির খান জানান, গোলাপগঞ্জ পৌরসভার রণকেলী গ্রামের সৈয়দ কুতুব আলীর পুত্র, পৌর আওয়ামীলীগ নেতা সৈয়দ মিছবাহ’র ছোট ভাই সৈয়দ জিল্লুর রহমানের কাছে ১০লক্ষ টাকা পাওনা ছিল।

এর পরিপেক্ষিতে জিল্লুর রহমান ইসলামী ব্যাংকের ১০লক্ষ টাকার একটি চেক আমায় দেন। কিন্তু এই একাউন্টে তার এত টাকা নেই বলে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ জানায়।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ইসলামী ব্যাংক গোলাপগঞ্জ শাখায় চেক ডিজনার করতে আসলে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ চেকের মালিক গোলাপগঞ্জ রণকেলী গ্রামের সৈয়দ পুত্র সৈয়দ জিল্লুর রহমানকে ফোন দেওয়া হয়। তখন জিল্লুর বিষয়টি এসে সমাধান করবেন বলে ব্যাংক কর্তৃপক্ষকে জানান। পরে তিনি ব্যাংকে এসে আমায় কিল ঘুষি মেরে আমার কাছ থেকে চেক নেওয়ার চেষ্টা করেন।

এক পর্যায়ে আরেকজন ব্যবসায়ী মাঝে পরে বিষয়টি সমাধানের জন্য বসার অনুরোধ করলে আমি তা মেনে নেই। কিন্তু জিল্লুর রহমান গোলাপগঞ্জ মডেল থানায় ফোন দিয়ে পুলিশ নিয়ে এসে আমায় থানায় জোর করে নিয়ে যান। সেখানেও আমার কাছ থেকে তিনি চেক নেওয়ার চেষ্টা করেন। পরে গোলাপগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সহ সকলের মধ্যস্থতায় বিষয়টি নিরসনে আগামী শনিবার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

এ ব্যাপারে জানতে সৈয়দ জিল্লুর রহমানের মুঠোফোনে একাধিকবার কল দিলেও তার ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

এ ব্যাপারে গোলাপগঞ্জ মডেল থানার এস আই বাপ্পি জানান, হেতিমগঞ্জের ব্যবসায়ী সাকির খান ও সৈয়দ জিল্লুর রহমানের মধ্যে টাকার চেক নিয়ে উত্তেজনা বিরাজ করছিল। তখন গোলাপগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মিজানুর রহমান আমার মাধ্যমে তাদের দু’জনকে থানায় নিয়ে আসতে বললে আমি তাদের নিয়ে আসি।