প্রচ্ছদ

বিসিবির যে সিদ্ধান্তে খুশি ক্রিকেটাররা

03 October 2019, 20:12

শুভ প্রতিদিন

স্পোর্টস ডেস্ক:
একজন অ্যাথলেটকে অবশ্যই শতভাগ ফিট থাকতে হয়। ফিটনেসে খারাপ কিন্তু খেলায় দুর্দান্ত এমন খেলোয়াড় খুঁজে পাওয়া যাবে না। কিন্তু বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের ফিটনেস নিয়ে অসন্তুষ্ট প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো। তার অসন্তুষ্টি প্রকাশের পরই নড়েচড়ে ওঠেন ক্রিকেট বোর্ডের কর্তারা। ফিটনেসে কোনো ছাড় নয় এমন সতর্কবাণীও পৌঁছে দেন ক্রিকেটারদের কানে। আর বিসিবির এই কঠোরতাকে নিজেদের জন্য ভালো মনে করে সাদরে গ্রহণ করছেন ক্রিকেটাররা।

‘প্রথমত বলবো যে আমরা প্রত্যেক বছরই দেখেছি বিসিবির পক্ষ থেকে একটা উন্নতির বিষয় থাকে। এবারও সেটা অব্যাহত আছে, আমরাও অনেক খুশি এমন পদক্ষেপে। ফিটনেসের ইস্যুটা যেভাবে তুলে ধরা হচ্ছে, আশা করছি বাকি যে বিষয়গুলো আছে সেগুলো তুলে ধরা হবে’-বিসিবির পদক্ষেপে নিজেদের সন্তুষ্টির কথা দৈনিক আমাদের সময়কে এভাবেই বলছিলেন জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার রকিবুল হাসান।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে রকিবুল হাসান আরও বলেন, ‘আশা করছি এবার ভালো হবে। সব কিছু বেশ ভালোভাবে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। একজন খেলোয়াড় হিসেবে আশা করছি যেভাবে আমাদের কাজগুলো এগুচ্ছে এবং আমাদের কাজকর্মগুলো করা হচ্ছে, ইতিবাচক একটা টুর্নামেন্ট হবে আশা করছি।’

বাংলাদেশের জার্সি গায়ে তিন ফরম্যাটে মোট ৬৯টি ম্যাচ খেলেছেন রকিবুল হাসান। সর্বশেষ খেলেছেন ঢাকায় ২০১১ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্টে। কদিন আগে আফগানিস্তান এ দলের বিপক্ষে খেলতে নেমে দুর্দান্ত হাফসেঞ্চুরি করেছিলেন। ঘরোয়া ক্রিকেটের নিয়মিত মুখ রকিবুল আশাবাদী আসন্ন জাতীয় লিগেও ব্যাট হাতে মাঠ মাতাবেন। গত দুই মৌসুমে তার ব্যাট থেকে আসে ৯ ম্যাচে ৩৪১ রান। এবার আরও ভালো করতে চান এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান।

রকিবুল বলেন, ‘প্রথমত বলবো, সবাই জানেন যে শেষ দুইটা মৌসুম অনেক ভালো গিয়েছে আমার। ব্যাটসম্যান হিসেবে অনেক রান পেয়েছি। এবারও আশা করবো সেই রানের গতি ধরে রাখতে, আরও বেশি রান করার আশা রাখি।’

একজন অ্যাথলেটকে অবশ্যই শতভাগ ফিট থাকতে হয়। ফিটনেসে খারাপ কিন্তু খেলায় দুর্দান্ত এমন খেলোয়াড় খুঁজে পাওয়া যাবে না। কিন্তু বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের ফিটনেস নিয়ে অসন্তুষ্ট প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো। তার অসন্তুষ্টি প্রকাশের পরই নড়েচড়ে ওঠেন ক্রিকেট বোর্ডের কর্তারা। ফিটনেসে কোনো ছাড় নয় এমন সতর্কবাণীও পৌঁছে দেন ক্রিকেটারদের কানে। আর বিসিবির এই কঠোরতাকে নিজেদের জন্য ভালো মনে করে সাদরে গ্রহণ করছেন ক্রিকেটাররা।

‘প্রথমত বলবো যে আমরা প্রত্যেক বছরই দেখেছি বিসিবির পক্ষ থেকে একটা উন্নতির বিষয় থাকে। এবারও সেটা অব্যাহত আছে, আমরাও অনেক খুশি এমন পদক্ষেপে। ফিটনেসের ইস্যুটা যেভাবে তুলে ধরা হচ্ছে, আশা করছি বাকি যে বিষয়গুলো আছে সেগুলো তুলে ধরা হবে’-বিসিবির পদক্ষেপে নিজেদের সন্তুষ্টির কথা দৈনিক আমাদের সময়কে এভাবেই বলছিলেন জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার রকিবুল হাসান।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে রকিবুল হাসান আরও বলেন, ‘আশা করছি এবার ভালো হবে। সব কিছু বেশ ভালোভাবে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। একজন খেলোয়াড় হিসেবে আশা করছি যেভাবে আমাদের কাজগুলো এগুচ্ছে এবং আমাদের কাজকর্মগুলো করা হচ্ছে, ইতিবাচক একটা টুর্নামেন্ট হবে আশা করছি।’

বাংলাদেশের জার্সি গায়ে তিন ফরম্যাটে মোট ৬৯টি ম্যাচ খেলেছেন রকিবুল হাসান। সর্বশেষ খেলেছেন ঢাকায় ২০১১ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্টে। কদিন আগে আফগানিস্তান এ দলের বিপক্ষে খেলতে নেমে দুর্দান্ত হাফসেঞ্চুরি করেছিলেন। ঘরোয়া ক্রিকেটের নিয়মিত মুখ রকিবুল আশাবাদী আসন্ন জাতীয় লিগেও ব্যাট হাতে মাঠ মাতাবেন। গত দুই মৌসুমে তার ব্যাট থেকে আসে ৯ ম্যাচে ৩৪১ রান। এবার আরও ভালো করতে চান এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান।

রকিবুল বলেন, ‘প্রথমত বলবো, সবাই জানেন যে শেষ দুইটা মৌসুম অনেক ভালো গিয়েছে আমার। ব্যাটসম্যান হিসেবে অনেক রান পেয়েছি। এবারও আশা করবো সেই রানের গতি ধরে রাখতে, আরও বেশি রান করার আশা রাখি।’