প্রচ্ছদ

সিলেটে চালু হলো বাংলাদেশের প্রথম ট্যুরিস্ট বাস

08 October 2019, 16:06

শুভ প্রতিদিন

নিজস্ব প্রতিবেদক:
বাংলাদেশের ইতিহাসে এই প্রথমবারের মতো সিলেটে চালু হয়েছে ট্যুরিস্ট বাস। আজ মঙ্গলবার বেলা আড়াইটার দিকে নগরীর জিন্দাবাজারে এ বাসের উদ্বোধন করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

এ সময় সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক নাসির উদ্দিন খান, মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম নাদেল, সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি এ টি এম শোয়েব উপস্থিত ছিলেন।

সিলেট ট্যুরস এন্ড ট্রাভেলসের উদ্যোগে এই ট্যুরিস্ট বাস দুটি চালু হয়েছে। আগামীতে আরো ৬টি ট্যুরিস্ট বাস চালু হবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। এসব বাসে এসি ও ওয়াইফাই আছে। বাসের কোনোটিতে ২২টি, কোনোটিতে ২৪টি করে আসন রয়েছে। সিলেট থেকে বিভিন্ন পর্যটন কেন্দ্রে যাবে এসব বাস।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন বলেন, ‘সিলেটে ট্যুরিস্ট বাস চালুর মধ্য দিয়ে নতুন ইতিহাস সৃষ্টি হলো। এর অংশ হেতে পেরে আমি খুবই ভাগ্যবান।’

তিনি বলেন, ‘পর্যটন বিভিন্ন দেশের আয়ের অন্যতম উৎস। আমাদের পাশের দেয় থাইল্যান্ডের জিডিপির ২৩ ভাগ আসে পর্যটন খাত থেকে। কিন্তু আমাদের জিডিপিতে পর্যটনের অবদান মাত্র ০.০০৫ ভাগ। দেশে পর্যটন বিকাশের যথেষ্ট সুযোগ আছে, কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে অবকাঠামোগত দিক ঠিক না থাকায় আমরা উন্নতি করতে পারিনি। তবে সুখের বিষয় হচ্ছে, সিলেটে দুটি ট্যুরিস্ট বাস আসছে। সিলেটে আরেকটি জিনিস করা হয়েছে, পুরো সিলেট নগরীকে ওয়াইফাই চালু করছি। কিছুদিনের মধ্যে মানুষ এর সুবিধা পাবে। তখন পর্যটকদের জন্যও সুবিধা হবে।’

মোমেন বলেন, ‘আমাদের নগরীতে সিটি বাস বা সিলেট নগর এক্সপ্রেস চালুর সিদ্ধান্ত হয়েছিল ৬ মাস আছে। নিটল গ্রুপ কয়েকটি বাস দেবে। তাতে চলাচলে সবার সুবিধা হবে।’

‘পর্যটন শিল্পে বড় হাতিয়ার হচ্ছে অবকাঠামো’ এমনটি উল্লেখ করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘হোটেল, বাস, রেস্তোরাঁ এগুলো অবকাঠামোর সাথে জড়িত। দিনে দিনে এগুলো তৈরি হচ্ছে, আরো ভালো হবে। এক্ষেত্রে আমার যতোটুকু সাহায্য প্রয়োজন, আমি অবশ্যই করবো। সিলেট অন্যান্য জেলাগুলো থেকে কিছুটা ডাউন আছে, যদিও এখানে সম্ভাবনা অনেক অনেক বেশি। সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে সিলেট চেম্বার এগিয়ে আসছে। আমরা একসাথে কাজ করে সিলেটকে সত্যিকারের পর্যটন নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে চাই।’

অনুষ্ঠানে সিটি মেয়র আরিফ বলেন, ‘সিলেটে ভ্রমণ ব্যবস্থা উন্নত করতে ট্যুরিস্ট বাস চালু হলো। এর মাধ্যমে ট্যুরিস্টরা স্বাচ্ছন্দ্যে চলাচল করতে পারবেন।’

ট্যুরিস্ট বাস চালু অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সিনিয়র সহসভাপতি তাহমিন আহমেদ, সহসভাপতি চন্দন দাস, পরিচালক আব্দুল রহমান জামিল, এহতেশামুল হক চৌধুরী, মামুন কিবরিয়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।